স্কিন কেয়ার

কলার ফেস মাস্কের উপকারিতা এবং ব্যবহারের নিয়ম

পটাশিয়াম এবং ফাইবারের মতো পুষ্টিগুণে ভরপুর কলা শুধু শারীরিক উপকারই দেয় না, ফেইস মাস্ক হিসেবে ত্বকের জন্যও উপকারী। কলায় উপস্থিত ভিটামিন, পটাসিয়াম এবং জিঙ্ক ত্বককে ময়শ্চারাইজ, পরিষ্কার এবং টোন করতে পারে। এটি মুখে উজ্জ্বলতা আনতে পারে। কলার ফেইস মাস্ক সব ধরনের ত্বকের জন্যই অনেক উপকারী।

আজকের পোস্টে কলার ফেস মাস্কের উপকারিতা এবং এগুলো কীভাবে তৈরি করতে হবে সেসব সম্পর্কে আলোচনা করবো-

কলার ফেস মাস্কের উপকারিতা

কলায় উপস্থিত সিলিকা নামক উপাদান ত্বকের জন্য উপকারী। এটি কোলাজেন উৎপাদনে সাহায্য করে এবং ত্বককে হাইড্রেটেড রাখতেও সাহায্য করে। ত্বকে কলা ব্যবহার করলে ত্বক মসৃণ হয়।

কলায় রয়েছে ত্বকের জন্য উপকারী পুষ্টিকর উপাদান, যেমন পটাসিয়াম, ভিটামিন-বি৬, ভিটামিন-সি এবং ভিটামিন-এ। এগুলো সবই ত্বককে পুনরুজ্জীবিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আসুন জেনে নেই কলার ফেইস মাস্কের উপকারিতা সম্পর্কে-

বলিরেখার জন্য কলার ফেইস মাস্ক

বয়স বাড়ার সাথে সাথে ত্বকে কোলাজেনের পরিমাণ কমতে থাকে, যার কারণে ত্বকের চামড়া ঝুলে পড়তে থাকে অর্থাৎ ত্বকের টাইটেন ভাব একদম কমে যায়। এমন অবস্থায় ত্বকে বলিরেখা আসতে শুরু করে। এটি এড়াতে, কলার ফেইস মাস্ক ব্যবহার অনেকটাই উপকারী। এটি ব্যবহার করলে ত্বকে কোলাজেন উৎপাদন শুরু হয়। এর কারণে ধীরে ধীরে বলিররেখা এবং বার্ধক্যের চাপ কমতে শুরু করে।

আরো পড়ুনঃ মুখের পিগমেন্টেশন: এই ৭টি ভুলের কারণে মুখে বাড়ে কালো দাগ, বেসনের ফেসপ্যাকঃ ১৫ টি সহজ টিপস

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কলার ফেস মাস্ক

কলায় রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং শরীরে ফ্রি র‍্যাডিক্যাল দূর করতে সহায়ক। এটি ফ্রি র‍্যাডিকেল দ্বারা সৃষ্ট ক্ষতি থেকে ত্বককে রক্ষা করতে পারে। কলার মাস্ক ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতে সহায়ক হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ স্থায়ীভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির উপায়, ত্বকের যত্নে রসুনঃ জেনে নিন কোন সমস্যায় কীভাবে ব্যবহার করবেন

ব্রণের জন্য কলার ফেইস মাস্ক

চা গাছের তেল এবং অন্যান্য তেলের মতো এতে বিশেষ পিম্পল -প্রতিরোধী বৈশিষ্ট্য নেই, তবে এতে ভিটামিন-এ থাকার কারণে এটি ত্বকের প্রদাহ কমাতে সহায়ক। কলাতে রয়েছে ফেনোলিকস, যার রয়েছে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য। এতে ব্রণের সমস্যা কমতে পারে।

আরো পড়ুনঃ ত্বক ফর্সা করার ঘরোয়া উপায় রূপচর্চা টিপস, ত্বকের জন্য চা গাছের তেলের উপকারিতা ও ব্যবহার

ব্রণের দাগ অপসারণে কলার ফেস মাস্ক

ত্বকে কলার ফেস মাস্ক ব্যবহার করার মাধ্যমে হাইপারপিগমেন্টেশন কমানো সম্ভব। কলায় রয়েছে ভিটামিন এ এবং সি, যা ছোট ছোট দাগ ও কালো দাগ কমাতেও সহায়ক। এটি ব্রণের কারণে ত্বকে তৈরি হওয়া চিহ্নগুলি দূর করার পাশাপাশি রোদের ফলে তৈরি পিগমেন্টেশন এবং বিভিন্ন দাগ নিরাময়েও উপকারী হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ মুখের কালো দাগ দূর করার উপায় ঘরোয়া পদ্ধতি, সহজে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

সূর্য থেকে সুরক্ষায় কলার ফেস মাস্ক

কলাতে এমন কিছু অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে, যা সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির কারণে হওয়া ডেমেইজ কে নিরসন করে ত্বককে সেই অতি বেগুনি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করতে উপকারী ভূমিকা পালন করে। একই সময়ে, ভিটামিন-এ, সি এবং ই ত্বকের সুরক্ষায় উপকারী প্রমাণিত হয়ে আসছে যুগ যুগ ধরেই। এসব উপাদান কলায় ভরপুর মাত্রায় রয়েছে। তাই কলার ফেইস মাস্ক নিয়মিত ব্যবহার এ ত্বকের আমূল পরিবর্তন করা সম্ভব।

শুষ্ক ত্বকের জন্য কলার ফেইস মাস্ক

কলার ফেইস মাস্ক ব্যবহার এ শুষ্ক ত্বকের নানা সমস্যা থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়। এটিতে উপস্থিত ভিটামিন-বি6 এবং পটাসিয়ামের কারণে শুষ্ক ত্বকের জন্য এটি হতে পারে একটি আশীর্বাদ।

কিভাবে কলার ফেস মাস্ক তৈরি করবেন

পাকা কলা দিয়েই কলার ফেইস মাস্ক তৈরি করা হয়। আপনার যদি শুষ্ক ত্বক হয়, তাহলে কুচি করা কলায় মিশ্রণ এর সাথে মধু যোগ করবেন। ত্বক বেশি তৈলাক্ত হলে একই ভাবে কলার ম্যাশ করে, এতে মধু এবং মুলতানি মাটিও একসঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন। সেই সঙ্গে ব্রণের দাগ থাকলে কয়েক ফোটা লেবু এর সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যায়। তবে লেবু ব্যবহার এর পূর্বে অবশ্যই প্যাচ টেস্ট করে নিবেন। আসুন, জেনে নেওয়া যাক কীভাবে তৈরি করবেন কলার ফেইস মাস্ক-

  • আপনার ত্বক অনুযায়ী ম্যাশ করা কলায় উপরে উল্লেখিত উপাদানগুলো মিশিয়ে নিন।
  • একটি পাত্রে সামান্য পানি দিয়ে ঘন ব্যাটার তৈরি করুন।
  • এবার আপনার রেগুলার ইউজ এর ফেসওয়াশ বা অর্গানিক কোনো ফেসওয়াশ বা ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে শুকিয়ে নিন এবং এই ফেস মাস্কটি লাগান।
  • প্যাকটি ১০ – ১৫ মিনিটের জন্য শুকাতে দিন।
  • তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
  • মুখ ভালো করে শুকিয়ে কিছু ময়েশ্চারাইজার লাগান।
  • এই ফেইসপ্যাক সপ্তাহে দুইবার লাগাতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা, মধুর ফেসপ্যাক দিয়ে ব্রণ দূর করার উপায়, ত্বকের জন্য মধুর উপকারিতা

সারসংক্ষেপ

কলা শুধু শরীরের জন্যই নয়, ত্বকের জন্যও উপকারী।কলার মাস্ক ত্বককে সুস্থ সুন্দর উজ্জ্বল রাখতে সহায়তা করে। ভিটামিন এবং পটাসিয়ামের মতো উপাদান ত্বককে টোনিং এবং ময়েশ্চারাইজ করতে উপকারী। কলার মাস্ক ব্রণের দাগ কমাতে এবং বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। একটা কথা মনে রাখবেন মাস্ক ব্যবহারের আগে ত্বকের ধরন জেনে নেওয়া এবং বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।এবং সাথে কোন কোন উপাদান এ আপনার এলার্জি আছে তাও জেনে নিবেন।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (13 votes)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button