বিউটি টিপস

কনুইয়ের কালো দাগ দূর করার উপায়

আবহাওয়া পাল্টে যাচ্ছে এমতাবস্থায় মানুষ আবারও তাদের গ্রীষ্মের পোশাক সাজাতে শুরু করেছে ওয়ারড্রোবে। স্পষ্টতই গ্রীষ্মে লোকেরা সাধারণত হাফ হাতা বা হাতাবিহীন পোশাক পরতে পছন্দ করে। তাই মুখের পাশাপাশি হাতের গভীর পরিচ্ছন্নতাও গরমের মৌসুমে জরুরি হয়ে পড়ে।

সাধারণত, হাতের দিকে নজর দিলে দেখা যায় যে হাতের ত্বক পরিষ্কার হতে শুরু করেছে। কিন্তু কনুইয়ের ত্বক কালো হলে হাতের সৌন্দর্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রকৃতপক্ষে, কনুই শরীরের এমন একটি অংশ যা অনেক লোকই মনোযোগ দেয় না। এমতাবস্থায় পরিচর্যায় অলসতার কারণে এখানকার ত্বক ট্যানড হতে শুরু করে।

যদি আপনার কনুইয়ের ত্বকও কালো হয়, তবে কিছু প্রাকৃতিক প্রতিকার গ্রহণ করে আপনি ত্বকের রঙ হালকা করতে পারেন। সবচেয়ে ভালো ব্যাপার হল আপনি আপনার রান্নাঘরে যে প্রতিকারের কথা বলতে যাচ্ছি তার সাথে সম্পর্কিত সমস্ত উপাদান আপনি পেয়ে যাবেন।

আসুন জেনে নিই কনুইয়ের কালো দাগ দূর করার উপায়, কীভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রতিকার করা যায়।

প্র্রথম পদ্ধতি

  1. একটি পাত্রে ১ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল এবং ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন।
  2. এবার এই মিশ্রণটি ধীরে ধীরে হাতের কনুইতে লাগান।
  3. এই মিশ্রণটি দিনে দুবার কনুইতে লাগিয়ে রেখে দিন।

কিছুক্ষণ পর এর ভালো ফল দেখতে পাবেন।

এক্ষেত্রে ত্বক বিশেষজ্ঞ ডাঃ অমিত বাঙ্গিয়া বলেছেন, ‘সরাসরি ত্বকে লেবুর রস লাগাবেন না। এর কারণে ত্বকের উপরের স্তর পাতলা হয়ে যায় এবং খোসা ছাড়তে শুরু করে। শুধু তাই নয়, এটি আপনার ত্বককেও ট্যান করে তোলে।

আরো পড়ুনঃ এলোভেরার উপকারিতা ও গুণাগুণ, লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা, এলোভেরা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

দ্বিতীয় পদ্ধতি

  1. ১ চা চামচ দই ও 1 চা চামচ ওটস মেশান। এই মিশ্রণ দিয়ে কনুই স্ক্রাব করুন।
  2. দইয়ের এক্সফোলিয়েটিং বৈশিষ্ট্য রয়েছে, এটি কনুইয়ের ত্বকে লেগে থাকা মরা চামড়া দূর করে, যার কারণে ত্বকের কালো ভাব কম দেখা যায়।
  3. 2 থেকে 3 মিনিট স্ক্রাব করার পরে, আপনার কনুই পরিষ্কার করুন।

এভাবে ঘরে তৈরি স্ক্রাব নিয়মিত ব্যবহার করলে ভালো ফল দেখতে পাবেন।

আরো পড়ুনঃ টক দই খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা এবং নিয়ম, সহজে ব্রণের দাগ দূর করার উপায়

তৃতীয় পদ্ধতি

  1. টমেটোর রস 1 চা চামচ ও 1/2 চা চামচ মধু মেশান।
  2. এবার এই মিশ্রণটি আপনার কনুইতে ধীরে ধীরে লাগান।
  3. এই মিশ্রণটি কনুইতে কিছুক্ষণ রেখে দিন।
  4. এর পরে আপনি কনুই পরিষ্কার করুন।

এই মিশ্রণটি আপনাকে দিনে দুবার কনুইতে লাগাতে হবে, এক সপ্তাহের মধ্যে ভালো ফল পাবেন।

মধু একটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার এবং টমেটোর রসে ব্লিচিং বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে উভয়ের মিশ্রণ ত্বকে লাগালে ব্লিচিং হওয়ার পাশাপাশি ময়েশ্চারাইজিংও হয়ে ওঠে।

আরো পড়ুনঃ হলুদের উপকারিতা স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্যে

চতুর্থ পদ্ধতি

  1. ১ চা চামচ দুধ ও ১ চা চামচ হলুদ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।
  2. এবার এই পেস্টটি কনুইতে লাগিয়ে আলতো করে কনুই ঘষুন।
  3. এই পেস্টটি কনুইতে কিছুক্ষণ রেখে তারপর পরিষ্কার করুন।

সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার এই পেস্টটি ব্যবহার করলে অনেক উপকার পাবেন। ত্বকে হলুদ লাগাতে সমস্যা হলে তার পরিবর্তে চন্দন ব্যবহার করতে পারেন।

আশা করি আপনি আমাদের এই পোস্টটি পছন্দ করেছেন। সৌন্দর্য সম্পর্কিত এরকম আরও লেখা পড়তে, অনুগ্রহ করে কমেন্ট করে আমাদের জানান এবং আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে যুক্ত থাকুন।

5/5 - (18 votes)

One Comment

  1. Great post, I think blog owners should acquire a lot from this web blog its rattling user genial.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button