বিউটি টিপস

চোখের পাপড়ি এবং ভ্রু বড় করার প্রাকৃতিক উপায়

সৌন্দর্যের মাপকাঠিতে শুধু ফর্সা গাত্রবর্ণ মানায় আসলে তা নয়, মুখের চোখ, নাক এবং ঠোঁট ইত্যাদির গঠনও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এর পাশাপাশি চোখের পাপড়ি ও ভ্রুর ঘন চুলও মানুষকে আকৃষ্ট করে। তবে খুব কম মহিলাই আছেন যাদের চোখের পাপড়ি এবং ভ্রু দুটোতেই ঘন চুল রয়েছে।

আপনি যদি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রুতে ঘন চুল চান, তবে আপনাকে তাদের বাড়তি যত্ন নিতে হবে। চোখের পাপড়ি এবং ভ্রু ঘন করার জন্য বাজারে অনেক পণ্য পাওয়া যায়। তবে এই পণ্যগুলোর প্রভাব যেমন স্থায়ী হয় না, তেমনি এগুলো খুব ব্যয়বহুল।

আজ আমরা আপনাদের এমন কিছু প্রাকৃতিক পদ্ধতির কথা বলব, যেগুলো লাগাতার ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

আপনি যদি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রুতে ঘন চুল চান তবে সবকিছু ছেড়ে এই তিনটি প্রাকৃতিক পদ্ধতি চেষ্টা করুন।

১। পেট্রোলিয়াম জেলি-

উপাদান-

  • ১/২ চা চামচ পেট্রোলিয়াম জেলি
  • ২ ফোঁটা ভিটামিন-ই তেল

প্রক্রিয়া-

  1. পেট্রোলিয়াম জেলিতে ভিটামিন-ই তেল মিশিয়ে ছোট কাঁচের বোতলে বা ক্যানে বন্দি করে রাখুন।
  2. এখন একটি মাস্কারা ব্রাশ ব্যবহার করে, এই মিশ্রণটি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রুতে লাগান।
  3. এই মিশ্রণটি দিনে অন্তত ২-৩ বার ব্যবহার করুন।
  4. আপনি যদি রাতে ঘুমানোর আগে এই মিশ্রণটি লাগান, তবে এতে বাদাম দিয়ে তৈরি কাজলও মিশিয়ে নিতে পারেন।

২। জলপাই তেল

উপাদান-

  • ৫ ফোঁটা অলিভ অয়েল
  • ১০ ফোঁটা গ্রিন টি

প্রক্রিয়া-

  1. পানিতে গ্রিন টি মিশিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিয়ে ফিল্টার করুন।
  2. এই পানিতে অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিন।
  3. এখন মাস্কারা ব্রাশের সাহায্যে আপনি এই মিশ্রণটি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রুতে লাগান।

আরো পড়ুনঃ জয়তুন তেলের উপকারিতা কি এবং ব্যবহারের সতর্কতা, মেথি তেলের উপকারিতা ও তৈরির নিয়ম, স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্যে নারিকেল তেলের উপকারিতা

৩। ক্যাস্টর অয়েলঃ-

উপাদান-

  • ৫ ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল
  • ৫ ফোঁটা নারকেল তেল

প্রক্রিয়া-

  1. একটি পাত্রে ক্যাস্টর অয়েল, নারকেল তেল এবং সামান্য কাজল মিশিয়ে নিন।
  2. এবার মাস্কারা ব্রাশের সাহায্যে এই মিশ্রণটি চোখের পাপড়ি ও ভ্রুতে লাগান।
  3. রাতে ঘুমানোর পূর্বে এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে ফল আরো কার্যকর হবে।

ক্যাস্টর অয়েল চুলের বৃদ্ধি বাড়ায়, নারকেল তেল চুলের সঠিক পুষ্টি জোগায়। এই দুটির মিশ্রণ চুলের হেয়ার টনিক হিসেবে কাজ করে।

এই তিনটি ঘরোয়া পদ্ধতি নিয়মিত ব্যবহার করলে খুব শীঘ্রই ভালো ফল দেখতে পাবেন।
এছাড়াও আপনি সরাসরি চোখের পাপড়ি এবং ভ্রুতে অলিভ অয়েল লাগাতে পারেন।

দ্রষ্টব্য- যেকোনো ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করার সময় খেয়াল রাখবেন যেন কোনো মিশ্রণ আপনার চোখের ভেতরে না যায়। যদিও এই সমস্ত পদ্ধতি চোখের জন্য নিরাপদ, কিন্তু তা যদি চোখে চলে যায় তাহলে জ্বালাপোড়ার সমস্যা হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (10 votes)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button