স্বাস্থ্য

কালো এলাচ এর উপকারিতা ও ব্যবহার

কালো এলাচের ফল, সুগন্ধী এবং এর কালো রঙের বীজের সাথে সবাই পরিচিত। এটি মশলা থেকে মিষ্টি সব কিছুতে ব্যবহৃত হয়। এর বীজ মসলা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সাধারনত এই এলাচ মশলায় ব্যবহার করা হয় যা খাবারকে সুস্বাদু করে, কিন্তু কালো এলাচ ঔষধ হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

এই এলাচের ল্যাটিন নাম হল Amomum subulatum। এটি Zingiberaceae পরিবারের অন্তর্গত।

আয়ুর্বেদ অনুসারে, কালো এলাচ পিত্ত প্রশমিত করতে, ঘুম আনতে, রুচি বাড়াতে কাজ করে। এটি হার্ট ও লিভারকে সুস্থ করে তোলে। এই এলাচ ক্ষুধা বাড়ায়, খাবার হজমে সাহায্য করে, মুখের দুর্গন্ধ দূর করে।

কালো এলাচ এর উপকারিতা ও ব্যবহার

মাথাব্যথা উপশমেঃ কালো এলাচ পিষে কপালে লাগালে এর ঘ্রাণের মাধ্যমে মাথাব্যথা উপশম হয়।

মুখের ঘা সারাতেঃ কালো এলাচ পিষে মধুর সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগালে মুখের ঘা সেরে যায়।

দাঁতের ব্যথায়ঃ সমান পরিমাণ এলাচলবঙ্গ গুঁড়ো দিয়ে দাঁতে ঘষলে দাঁতের ব্যথায় উপকার হয়।

৪০০ মিলিপানিতে ৪-৫ টি কালো এলাচফল সিদ্ধ করুন। এই ক্বাথ দিয়ে গার্গল করলে দাঁতের ব্যথা নিরাময় হয়।

২-৩টি বড় এলাচের খোসা পিষে খান যা, দাঁতের রোগে ও মুখের ফোলা রোগে উপকারী।

মুখের রোগ সারাতেঃ মুখ থেকে অতিরিক্ত থুথু পড়লে বা লালা বেশি হলে কালো এলাচ ও সুপারি সমপরিমাণে পিষে মিশিয়ে নিন। ১-২ গ্রাম নিয়ে চুষে খেলে থুতনি কম হয় এবং লালা প্রবাহ বন্ধ হয়ে যায়।

শ্বাসকষ্টের সমস্যায়ঃ কালো এলাচের তেলে ৫-১০ ফোঁটা চিনি মিশিয়ে নিয়মিত খেলে শ্বাসকষ্টের রোগে উপকার পাওয়া যায়।

হেঁচকি বন্ধ করতেঃ দুটি কালো এলাচ এক কাপ পানিতে পিষে সেদ্ধ করুন। অর্ধেক পানি বাকি থাকলে তা ছেঁকে ঠান্ডা হতে দিন। এটি খেলে হেঁচকিতে তাৎক্ষণিক উপকার পাওয়া যায়।

বদহজমের সমস্যায়ঃ কালো এলাচের ৮-১০ টী বীজের সাথে ২ গ্রাম মৌরি খেলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়।

বেশি কলা খাওয়ার ফলে বদহজম হলে, ১-২টি কালো এলাচ খেলে হজমে সাহায্য করে।
বড় এলাচের গুঁড়ো এবং শুকনো আদার গুঁড়ো সমান পরিমাণে মিশিয়ে নিন। এটি ৫ গ্রাম খেলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়।

এক গ্রাম কালো এলাচের বীজের গুঁড়ার মধ্যে ৪ গ্রাম চিনি মিশিয়ে সকাল-সন্ধ্যায় ১ গ্রাম খেলে গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষুধামন্দার সমস্যায় উপশম হয়।

পেটের রোগ নিরাময়েঃ কালো এলাচের বীজের গুঁড়ো ৫ গ্রাম কালো লবণের সঙ্গে খেলে পেটব্যথা ও পেটের গ্যাসে উপকার পাওয়া যায়।

০.৫-১ গ্রাম বড় ইলা পাউডারের ১৫-২৫ মিলি কাঞ্জি খেলে গ্যাসে আরাম পাওয়া যায়।

৫ গ্রাম কালো এলাচের গুঁড়ো মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খেলে পেটের ব্যথায় উপকার পাওয়া যায়।

১-২ টি কালো এলাচের গুঁড়ো দিনে তিনবার খেলে শূলে উপশম হয়।

বমি বন্ধ করতেঃ সমান পরিমাণ এলাচ ও পুদিনা মিশিয়ে নিন। ২-৩ লিটার পানিতে সিদ্ধ করে অল্প অল্প করে খেলে বমি বন্ধ হয়ে যায়। বড় এলাচের গুঁড়ো ৫ গ্রাম খেলে বমি বন্ধ হয়।

আমাশয় রোগের চিকিৎসায়ঃ ১ গ্রাম কালো এলাচের বীজের গুঁড়া ১০ গ্রাম বেলগিরির সাথে মিশিয়ে সকাল-সন্ধ্যা সেবনে আমাশয়ে উপকার পাওয়া যায়।

কলেরার চিকিৎসায়ঃ কালো এলাচের নির্যাস ৫-১০ ফোঁটা খেলে কলেরা ও আমাশয়ে উপকার পাওয়া যায়।

লিভার ডিসঅর্ডারের জন্যঃ সরিষার দানার সাথে কালো এলাচ গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এটি নিয়মিত ২-৩ গ্রাম পরিমাণে খেলে লিভারের সমস্যায় উপকার পাওয়া যায়।

মূত্রনালীর সমস্যা নিরাময়েঃ কালো এলাচ বীজের গুঁড়ো ও চিনির মিছরির সমান অংশ মিশিয়ে নিন। প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা ২-৩ গ্রাম করে খেলে মূত্রনালীর সমস্যা নিরাময় হয়।

কালো এলাচ ১০ টুকরা খোসা সহ দুধ এবং ২৫০ মিলি পানি দিয়ে রান্না করুন। এর অর্ধেক ফিল্টার করার পর এতে কিছু চিনি মিশিয়ে দিনে চারবার পান করুন। এটি প্রস্রাবের জ্বালাপোড়া সমস্যা দূর করে।

আরো পড়ুনঃ প্রস্রাবে ইনফেকশনের লক্ষণ, কারণ ও ঘরোয়া প্রতিকার, পুরুষদের জন্য অশ্বগন্ধার উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

কিডনিতে পাথরের সমস্যায়ঃ কালো এলাচবীজের গুঁড়োতে তরমুজের বীজের গুঁড়ো এবং চিনির মিছরি মিশিয়ে নিন। ২-৩ গ্রাম পরিমাণে খেলে পাথর ভেঙ্গে যায়।

পুরুষত্বহীনতা সমস্যায়ঃ কালো এলাচের বীজ, সাদা মুসলি ও মিছরির গুঁড়া মিশিয়ে নিয়মিত ২-৩ গ্রাম করে সকাল-সন্ধ্যা খেলে পুরুষত্বহীনতায় উপকার পাওয়া যায়।

কুষ্ঠ রোগের চিকিৎসায়ঃ কালো এলাচ, চিত্রক মুল, কুন্ডরু, বাসক পাতা, নিশোথা, মাদার পাতা নিন। শুকনো আদা মিশিয়ে পাউডার তৈরি করুন এবং সাথে পলাশ ক্ষার ভিজিয়ে ছায়ায় আট দিন শুকিয়ে নিন।

সব মিলিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি শরীরে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রোদে বসে থাকুন। শুকানোর পর গোসল করুন। এটি কুষ্ঠ রোগে উপকারী।

জ্বরের বিরুদ্ধেঃ দুই ভাগ কালো এলাচের বীজ এবং এক ভাগ এলাচের মূলের ছাল মিশিয়ে গুঁড়া তৈরি করুন। এক কাপ দুধ ও পানিতে এক চামচ গুঁড়ো মিশিয়ে রান্না করুন। শুধুমাত্র দুধ বাকি থাকলে, 20 মি.লি.পরিমাণ সকাল, বিকাল ও সন্ধ্যায় খেলে জ্বর ভালো হয়।

ক্যান্সারের চিকিৎসায়ঃ একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, কালো এলাচের মধ্যে অ্যান্টি-ক্যান্সার এবং ইমিউনোসপ্রেসিভ বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়। এই কারণে, এটি ক্যান্সারের লক্ষণগুলি কমাতে সহায়তা করে।

আরো পড়ুনঃ কালমেঘের উপকারিতা এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া, কিসমিসের উপকারিতা ও অপকারিতা এবং খাওয়ার নিয়ম, নাগরমোথার উপকারিতা ও ব্যবহার

আলসার চিকিৎসায়ঃ দুর্বল হজমের কারণে আলসার হয়। কালো এলাচ এর দীপন গুণের কারণে আপনার হজমশক্তি ঠিক রাখে, সেই সঙ্গে ডিকনজেস্ট্যান্ট গুণ থাকায় মুখের ভেতরের সব সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে এবং মুখ ভিতর থেকে পরিষ্কার রাখে।

সৌন্দর্য বাড়াতেঃ একটি গবেষণা অনুসারে ,কালো এলাচের মধ্যে পাওয়া অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যের কারণে এটি বলিরেখা দূর করতে এবং ত্বকের উন্নতিতে সহায়ক।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেঃ এই এলাচ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হওয়ায় উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সহায়ক।

আরো পড়ুনঃ

5/5 - (6 Reviews)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button